Events Calendar

حادي:

21/08/2013 05:07
  আয়েশা (রাঃ) হতে বর্ণিত । রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (সূরা নাস ও সূরা ফালাক পড়ে) তাঁর কোন কোন বিবির ব্যাথার স্থানে আপন ডান হাত খানা বুলিয়ে দিতেন এবং দো'আ পড়তেন: اللّٰهُمَّ رَبَّ النَّاسِ أَذْهِبِ البَأسَ وَاشْفِ أَنْتَ الشَّافِي، لاَ شِفَاءَ إِلَّا شِفَاؤُكَ، شِفَاءً لاَ...

মিথ্যা ভোর :

21/07/2012 12:25
  ফজর সালাতের সময় শুরু হয় হল যখন দ্বিতীয় ভোর শুরু হয়, যা সাদা রেখা যে ডান ও বাম দিগন্তে অনুভূমিকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। এই সময় সূর্যউদয় পর্যন্ত স্থায়ী হয়। প্রথম ভোরকে মিথ্যা ভোর বলা হয়। যার শুভ্রতা আকাশে স্তম্ভের মত উল্লম্বভাবে উদ্ভাসিত হয়। এটি সত্য ভোরের প্রায় বিশ মিনিট আগে...

What are the excuses today?

16/07/2012 20:16
  What are the excuses today? আজকে নামাজ না পড়ার কি কি অজুহাত দেখাবেন ?  

আপনি কি জানেন?

05/06/2012 12:27
  আপনি যখন একটি কোরআন হাতে নিবেন, তখন শয়তানের মাথা ব্যথা হয়... যখন এটি খুলবেন, তখন সে অবসন্ন হয়... যখন এটি পড়বেন, তখন সে নিস্তেজ হয়...আর যখন এটাকে ভালোবাসবেন, তখন সে পালাবে... আর যখন এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইবেন, তখন সে আপনাকে নিরুৎসাহিত...

আপনার সম্পর্কে ১০টি চরম সত্য ঘটনা যা আমি জানি

21/01/2012 12:09
১) আপনি এখন এটি পড়া শুরু করেছেন। ২) আপনি মোটামুটি ভাবে ধরে ফেলেছেন যে এটা একটা ভুয়া জিনিষ। ৪) তবে একটা জিনিষ ধরতে পারেননি এবং সেটা হল তিন নম্বরটি বাদ পড়েছে। ৫) আপনি এইমাত্র তা পরীক্ষা করলেন এবং দেখলেন যে ঘটনাটি সত্য। ৬) আপনি হাসছেন। ৭) তারপরও একটি ফালতু লেখা জেনেও আপনি এই লেখাটি পড়া চালিয়ে...

●|● প্রত্যেক নেক কাজের ফল আল্লাহর কাছে সংরক্ষিত আছে ●|●

21/01/2012 11:05
  উক্ত আবূ হুরাইরাহ (রাঃ) থেকেই বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেন, “একদা এক ব্যক্তি পথ চলছিল। তার খুবই পিপাসা লাগল। অতঃপর সে একটি কূপ পেল। সুতরাং সে তাতে নেমে পানি পান করল। অতঃপর বের হয়ে দেখতে পেল যে , (ওখানেই) একটি কুকুর পিপাসার জ্বালায় জিভ বের করে হাঁপাছে ও কাদা চাটছে। লোকটি (মনে মনে) বলল,...

‎::Read 99 Names Of Allah::

11/01/2012 12:22
  01 ALLAH 02 AR-RAHMAN 03 AR-RAHIM 04 AL-MALIK [05] AL-QUDDUS [06] AS-SALAM [07] AL-MU'MIN [08] AL-MUHAMIN [09] AL-'AZIZ [10] AL-JABBAR [11] AL-MUTAKABBIR [12] AL-KHALIQ [13] AL-BARI [14] AL-MUSAWWIR [15] AL-GAFFAR [16] AL-QAHHAR [17] AL-WAHHAB [18] AL-RAZZAK [19]...

আমীন.....

21/01/2011 10:00
  ► হে আল্লাহ্‌,তুমি আমায় এমন ভাবে ক্ষমা কর যেন এরপর আর পাপ না করি। ► হে আল্লাহ্‌,তুমি আমায় এমন ভাবে হেদায়েত কর যেন এরপর আর ভুল পথে না যাই। ► হে আল্লাহ্‌,তুমি আমায় তোমার পছ্ন্দের তালিকায় এমন ভাবে যুক্ত কর যেন এরপর আর পছন্দের না হই। ►হে আল্লাহ্‌,তুমি আমায় এমন শান্তি দান কর যেন এরপর আর...

●|● ফরজ নামাজ ছাড়া অন্যান্য নামাযগুলি ঘরে পড়া ●|●

11/01/2011 12:57
জাবির রাযিআল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি অসাল্লাম বলেছেন, ‘যখন তোমাদের কেউ মসজিদে নামাজ সমাপ্ত করে সে যেন তার নামাযের কিছু অংশ তার বাড়িতে পড়ার জন্য ছেড়ে রাখে। কারন, আল্লাহ বাড়িতে নামায পড়ার মধ্যে অনেক কল্যান রেখেছেন’ [মুসলিম-৭৭৮, ১০০ সুসাব্যস্ত সুন্নত পৃঃ...

 

কাবা শরীফের গিলাফ একটি বস্ত্রখণ্ড যা দিয়ে পবিত্র কাবাকে আচ্ছাদিত করে রাখা হয়। বর্তমানে গিলাফ কালো রেশমী কাপড় নির্মিত, যার ওপর স্বর্ণ দিয়ে লেখা থাকে "লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলাল্লাহ", "আল্লাহু জাল্লে জালালুহু", "সুবহানাল্লাহু ওয়া বেহামদিহি, সুবহানাল্লাহিল আযিম" এবং "ইয়া হান্নান, ইয়া মান্নান"। ১৪ মিটার দীর্ঘ এবং ৯৫ সেমি প্রস্থ ৪১ খণ্ড বস্ত্রখণ্ড জোড়া দিয়ে গিলাফ তৈরি করা হয়। চার কোণায় সুরা ইখলাস স্বর্ণসূত্রে বৃত্তাকারে উৎকীর্ণ করা হয়। রেশমী কাপড়টির নিচে মোটা সাধারণ কাপড়রের লাইনিং থকে। একটি গিলাফে ব্যবহৃত রেশমী কাপড়ের ওজন ৬৭০ কিলোগ্রাম এবং স্বর্ণের ওজন ১৫ কিলোগ্রাম। বর্তমানে এটি তৈরীতে ১৭ মিলিয়ন সৌদী রিয়াল ব্যয় হয়। গিলাফ পরিবর্তনের সময় সৌদি পুলিশ এভাবেই পবিত্র কাবা শরীফ চারপাশ থেকে ঘিরে রাখে।।

 

 

বিশ্বের সেরা ধনী ।৩.বিল গেস্ট
২.কালোর্স বিন হুগো ।
১.যে বেক্তি ফজর নামাজ আদায় করলো ।  

 

আগত পবিত্র রামাদান মাস - 
আমাদের জন্য রহমত এবং বরকত নিয়ে আসুক 
আ্মাদের পূর্বের সমস্ত গুনাহ মিটিয়ে দিক
আমাদের ঈমান বৃদ্ধিতে সহায়ক হোক 
আমাদের অন্তর বিশুদ্ধ করে তুলুক !!
আমীন !!!

 

২০ সেকেন্ড তাকিয়ে থাকুন বা দিকের অংশে । এর পর সাদা অংশে তাকান । কিছু দেখতে পারলে লাইক করুন 
শেয়ার করে সবাইকে চমকে দিন

 

*চরম একটি joxs না পড়লে চরম মিস*

অফিসারঃ আপনার নাম কি?
প্রার্থীঃ M.P স্যার।
অফিসারঃ এম.পি তার মানে কি?
প্রার্থীঃ মহন পাল স্যার।
অফিসারঃ আপনার পিতার নাম কি?
প্রার্থীঃ এম.পি স্যার।
অফিসারঃ তার মানে কি?
প্রার্থী। মদন পাল স্যার।
অফিসারঃ আপনার যোগ্যতা?
প্রার্থীঃ এম.পি স্যার।
অফিসারঃ(রাগ করে) এইটা কি?
প্রার্থীঃ মেট্রিক পাস স্যার।
অফিসারঃ আপনে কেন কাজ চান?
প্রার্থীঃ এম.পি স্যার।
অফিসারঃ (অঅহহ)তার মানে কি?
প্রার্থীঃ মানি প্রব্লাম স্যার।
অফিসারঃ আপনার PERSONALITYবর্ণনা করেন।
প্রার্থীঃ এম.পি স্যার।
অফিসারঃ খুলে বলেন।
প্রার্থীঃ MAGNANIMOUS
PERSONALITY স্যার।
অফিসারঃ আপনে আসতে পারেন।
প্রার্থীঃ এম.পি স্যার ?
অফিসারঃ এইটা কি আবার ?
প্রার্থীঃ MY PERFORMANCE…?
অফিসারঃ M.P!!!
প্রার্থীঃ তার মানে কি স্যার?
অফিসারঃ MENTALLY PUNCTURED… :P

 

আধুনিক জীবনের অপরিহার্য অনুষঙ্গ
হয়ে উঠেছে মোবাইল ফোনসেট।
বাজারে পাল্লা দিয়ে চলছে নিত্যনতুন
ডিজাইনের মোবাইল ফোনসেট ছাড়ার হিড়িক।
কোন কম্পানি কত আগে, কত কম
দামে বেশি সুবিধাসম্পন্ন, কত হালকা মোবাইল ফোনসেট বাজারে ছাড়তে পারে; তা নিয়ে এক
মহাযুদ্ধ। ক্রেতারাও ঝুঁকছে নতুন নতুন
বাহারি পণ্যের দিকে। কিন্তু তাও যেন মনঃপূত
হচ্ছিল না। তাই সবাইকে চমকে দেওয়ার
মতো মোবাইল ফোনসেট তৈরি করল কানাডার
একদল বিজ্ঞানী। তাদের উদ্ভাবিত এ মোবাইল ফোনসেট এতটাই পাতলা যে এর নাম
দেওয়া হয়েছে কাগজ-ফোন (পেপার-ফোন)।
ক্রেডিট কার্ডের মতো মানিব্যাগেও বহন
করা যাবে এ ফোনসেট। কল করা থেকে শুরু করে গান শোনা, বই
পড়া ইত্যাদি যা যা একটি স্মার্টফোনে সম্ভব
তার সবকিছুই করা যাবে এ কাগজ-ফোনে।
এটি অনেকটা কম্পিউটারের মতোও কাজ করবে।
সবচেয়ে আকর্ষণীয় দিকটি হচ্ছে এ ফোনসেট
দিয়ে কথা না বললে এর কোনো চার্জই খরচ হবে না। কাগজ-ফোনসেটের উদ্ভাবক কুইন্স
ইউনিভার্সিটির হিউম্যান মিডিয়া ল্যাবের
পরিচালক রোয়েল ভার্টিগাল বলেন, ‘এটাই
ভবিষ্যৎ। আগামী পাঁচ বছরে সবকিছুই
দেখতে অনেকটা এ রকম হয়ে যাবে। এ ফোন
দেখতে এক টুকরো কাগজের মতো এবং সে রকমভাবেই এটি ব্যবহার
করা যাবে। অর্থ্যাৎ লোকজন যখন এ ফোনে কিছু
পড়বে তাদের মনেই হবে না হাতে কাঁচ
বা ধাতবের কোনো টুকরো ধরা আছে।
আপনি এটিকে ভাঁজ করে নিয়েও
কথা বলতে পারবেন, আঙুলের সাহায্যে বইয়ের পাতা উল্টানোর মতো ব্যবহার করতে পারবেন,
আবার কলম দিয়ে এতে লিখতেও পারবেন।’ গবেষকরা জানান, এ ফোন সেটের
ডিসপ্লে তৈরি করা হয়েছে পাতলা ফিল্ম দিয়ে,
যার আকার ৯ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার। এ
কারণে এটি বাজারে থাকা অন্য
যেকোনো স্মার্টফোনের চেয়েও সহজে বহনযোগ্য

এক ছেলে সিগারেট খাচ্ছিল দেখে এক মেয়ে জিগ্যেস করলো,
আচ্ছা আপনি কত বছর ধরে সিগারেট খান??
ছেলেঃ কেন ..??!!!
মেয়েঃ নাহ মানে আমি বলতে চাচ্ছি আপনে যদি সিগারেট
খেয়ে এত টাকা নষ্ট না করতেন তাহলে সামনের
ওই কারটা হয়তো আজ আপনার হতে পারত!!
ছেলেঃ আপনি কি সিগারেট খান..??
মেয়েঃ নাহ
ছেলেঃ সামনের অই কার টা কি আপনার??
মেয়েঃ নাহ
ছেলেঃ সামনের ওই কারটা আমার !!!!

মরালঃ যেই-খানে সেই-খানে যারে তারে উপদেশ দিতে যাবেন
না বেইজ্জতি হইয়া যাইতে পারেন :P :P

 

♥~* আজ আপনার পায়ের নীচে মাটি আছে , কাল হয়তো আপনার উপর মাটি থাকবে-
অন্যরা আপনার জন্য সালাত (জানাজা) আদায়ের আগে, নিজে আজ থেকেই সালাত আদায় করুন !

আল্লাহ তা'য়ালা কুর'আন শরীফে বলছেন,
"সমস্ত নামাযের প্রতি যত্নবান হও,"[সূরা আল বাক্বারাহ -২৩৮]

 

●|● সীমালঙ্ঘনকারীদের পরিণতি ●|●

"এমনিভাবে আমি তাকে প্রতিফল দেব, যে সীমালঙ্ঘন করে এবং পালনকর্তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন না করে।...."
"আমি এদের পূর্বে অনেক সম্প্রদায়কে ধবংস করেছি। যাদের বাসভুমিতে এরা বিচরণ করে, এটা কি এদেরকে সৎপথ প্রদর্শন করল না? নিশ্চয় এতে বুদ্ধিমানদের জন্যে নিদর্শনাবলী রয়েছে।" 
[সূরা ত্বোয়া-হা- ১২৭, ১২৮]

আসছে পবিত্র 'রামাদান'। আমাদের সবারই রামাদানের ইবাদত নিয়া অনেক পরিকল্পনা থাকে কিন্তু,প্রতি বছর রামাদান আসে, আমরা ইবাদত ডুবে যাওয়ার আগেই তা চলে যায়।

সাহাবীগন ছয়মাস আগে থেকেই রামাদানের প্রস্তুতি নিতেন,
আসুন আমরাও এবার আগে থেকেই কিছু আমলের অভ্যাস করিঃ

••► সালাতে খুশু আনার জন্য আমরা 'সূরা ফাতিহা' ও অন্য যে ছোট সূরা গুলো পরি তার অর্থ শিখে নেই।
••► 'তাহাজ্জুদ' সালাত আদায়ের অভ্যাস করি।
••► প্রতিদিন অন্তত এক পৃষ্ঠা কুরআন তিলাওয়াত করি। (বুঝে পড়তে পারলে খুবি ভাল হয়)
••►অল্প হলেও দান-সাদকা করি।

আল্লাহ আমাদের সবাইকে এই রামাদানে বেশী বেশী আমল করার ও পরিপূর্ন সওয়াব পাওয়ার তওফিক দিন। আমীন।

রমজান বিষয়ে আমাদের ওয়েবসাইটে কিছু প্রয়োজনীয় লিংক - http://www.quraneralo.com/category/topic/fasting/
http://www.quraneralo.com/rojar-masael/

 

আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্রের নীচে লাল কালি দিয়ে লেখা ১৩ সংখ্যার একটা নম্বর আছে যাকে আমরা আইডি নম্বর হিসাবে জানি।কিন্তু এই ১৩ সংখ্যার মানে কি বলতে পারবেন ?
১। এর প্রথম ২ সংখ্যা - জেলা কোড। ৬৪ জেলার আলাদা আলাদা কোড আছে। ঢাকার জন্য এই কোড ২৬।

২। পরবর্ত্তি ১ সংখ্যা - এটা আর এম ও (RMO) কোড।

সিটি কর্পোরেশনের জন্য - ৯
ক্যান্টনমেন্ট - ৫
পৌরসভা - ২
পল্লী এলাকা - ১
পৌরসভার বাইরে শহর এলাকা - ৩
অন্যান্য - ৪

৩। পরবর্ত্তি ২ সংখ্যা - এটা উপজেলা বা থানা কোড

৪। পরবর্ত্তি ২ সংখ্যা - এটা ইউনিয়ন (পল্লীর জন্য) বা ওয়ার্ড কোড (পৌরসভা বা সিটি কর্পোরেশনের জন্য)

৫। শেষ ৬ সংখ্যা - আই ডি কার্ড করার সময় আপনি যে ফর্ম পূরণ করেছিলেন এটা সেই ফর্ম নম্বর।

বর্তমানে আবার ১৭ ডিজিট ওয়ালা আইডি কার্ড দেয়া হচ্ছে যার প্রথম ৪ ডিজিট হচ্ছে জন্মসাল!

 



 


 

 

 

[ সবচেয়ে ভয়ংকর বিষধর মাকড়সা ]

পৃথিবীতে এমন কিছু ভয়ংকর মাকড়সা আছে যাদের বিষের মাত্রা এতটাই
শক্তিশালী যে,এরা অনেক বিষাধর সাপের থেকেও অনেক গুন বেশি বিষাক্ত।
২০০৭ সালের গীনিজ বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ড অনুযায়ী
Brazilian Wondering Spider পৃথিবীর সবচেয়ে বিষধর
মাকড়সা যা বেশিরভাগ মানূষের মৃত্যুর কারন। অন্যান্য মাকড়শার চেয়ে এই মাকড়সা অধিক শক্তিশালী বিষ নিয়ে বেঁচে থাকে ।একটি ইঁদুর মারতে এর বিষ মাত্র ০.০০৬ মিলিগ্রাম যথেষ্ট,যা ২০ সেকেন্ডের মধ্যে ইঁদুরের মৃত্যু ঘটায়।

এই মাকড়শা এতটা ভয়ংকর আর বিষাধর যে এটির কামড খেলে মানুষ
তীব্র যন্ত্রণাই কাতর হয়ে হাত পা অবশ হয়ে যায় এবং মাত্র কয়েক ঘন্টার মধ্যে মৃত্যু ঘটার সম্ভাবনা থাকে। এটার বিষে শুধু তীব্র যন্ত্রণাই করে না-কয়েক ঘন্টার জন্য অস্বস্তিকর
লিঙ্গোউথ্বান করে যা পরবর্তীতে নপুংসকতার দিকে ঠেলে দেয়।

তাদের আশ্চর্য স্বভাবের কারণে তারা অতি ভয়ংকর। তারা সাধারণতঃ দিনের বেলায় জনাকীর্ণ এলাকায়, বাসগৃহে, কাপড়ে, জুতোর ভেতরে, গাড়িতে লুকিয়ে থাকে।এই ভয়ংকর মাকড়সা ব্রাজিলের বিভিন্ন স্থানে এবং আফ্রিকা জঙ্গলের গভীর অরন্যে বেশি থাকে।

 

 

♥ Beautiful Bangladesh ♥ 
Proud to be Bangladeshi :D

 

 

 

[ ভয়ঙ্কর মাংসাশী উদ্ভিদ কলসি ]

কলসি এক ধরনের ভয়ঙ্কর মাংসাশী উদ্ভিদ। এর পাতা দেখতে অনেকটাই কলসির মতো। পাতা গুলোর মাধ্যমেই উদ্ভিদটি শিকার করে। এদের গঠন ও আকৃতি থেকেই নাম দেওয়া হয় কলসি উদ্ভিদ। বর্তমানে পৃথিবীতে প্রায় ৮০ প্রকারের কলসি উদ্ভিদ দেখা যায়। বিশেষ করে আমেরিকা, মাদাগাস্কার, ভারত ও শ্রীলঙ্কার গ্রীষ্মমণ্ডলীয় অঞ্চলে বেশি দেখা যায়। এই উদ্ভিদের পাতা দেখতে সাধারণ মানের ও উজ্জ্বল রংয়ের কলসি সদৃশ্য দুরকমই দেখতে পাওয়া যায়। একটি আকর্ষী থেকে ধীরে ধীরে সুতার মতো একটি পাতা উৎপন্ন হয় তা ক্রমান্বয়ে বড় হয়ে একটি জগের আকার ধারণ করে। বিভিন্ন প্রজাতির কলসি উদ্ভিদের পাতা গুলো বিভিন্ন আকারের হয়ে থাকে। তবে সচরাচর দুই ইঞ্চি থেকে দুই ফুটের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে এর আকার। আজব প্রজাতির এই মাংসাশী উদ্ভিদ একসময় মাছি, গুবরেপোকা, পিঁপড়া ইত্যাদি শিকার শুরু করে। বড় আকারের কলসি উদ্ভিদ গুলো অনেক সময় ছোট আকারের ব্যাঙ ও ইঁদুরও শিকার করে। এই উদ্ভিদ কোনো প্রকার নাড়াচাড়া ছাড়াই পরোক্ষভাবে শিকার করে। কলসির মাথায় রয়েছে একটি ঢাকনা। এই ঢাকনাটি সব সময় খোলা থাকে বলে এর মুখ দিয়ে প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টির পানি ঢোকে। কলসির মুখে এক ধরনের মধু উৎপন্ন হয়। মূলত এই মধুর লোভেই পোকামাকড় হামাগুড়ি দিয়ে কলসির ভেতর প্রবেশ করে।
পোকাটি কলসির ভেতরে ঢুকেই বিপদে পড়ে যায়। কারণ এর ভেতরের দেয়ালটি বরফের মতো মসৃণ ও পিচ্ছিল। ফলে পোকাটি কলসির আরও গভীরে পড়ে যায়। কলসির তলদেশে রয়েছে অসংখ্য শূঙ্গ। এই শূঙ্গের জলে একবার কোনো পোকা পতিত হলে আর বের হতে পারে না। তখন কলসি উদ্ভিদের পরিপাকে সাহায্যকারী উৎসগুলো কলসির তলদেশে বেরিয়ে আসে। এর ফলে পোকার দেহের নরম অংশগুলো পরিপাক হয়ে কলসি উদ্ভিদের দেহে শোষিত হয়। আর শক্ত
অংশগুলো কলসির তলদেশে জমা থাকে।
 


  

 

 

পৃথিবীতে প্রতিদিন যে কত অদ্ভুত বিষয় ঘটছে তার হয়েতো কোন ইয়ত্তা নেই। তেমনি একটি অদ্ভুত ঘটনা ঘটেছে আমেরিকার টেক্সাসে। সেখানে কুকি স্মিথ নামে এক মহিলা তার মুরগির দেয়া ডিমের মধ্যে খুঁজে পেয়েছেন আরেকটি পরিপূর্ণ ডিম।
জানা যায়, সম্প্রতি টেক্সাসের এবিলিনিতে বসবাসকারী কুকি স্মিথের পালা ৩টি মুরগির মধ্যে একটি অস্বাভাবিক বড় রকমের ডিম দেয়। কুকি জানায়, ডিমটি স্বাভাবিক ডিমের চেয়ে ৩ ইঞ্চি লম্বা এবং একটু ভারি। ডিমটি পেয়ে তিনি আশ্চর্য হয়ে ঘরে নিয়ে আসেন।
এরপর ডিমটি ভাঙ্গতেই তার ভেতর থেকে বেড়িয়ে আসে আরেকটি পরিপূর্ণ ডিম। তবে এই ডিমটির চামড়া ছিলো একটু পাতলা।

আশ্চর্য এই ঘটনাটি তারপর দিনই অর্থাৎ গত সোমবার ফলাও করে ছাপা হয় স্থানীয় একটি পত্রিকায়।

 

 

কি ভাবছেন ? এটি আমাজন ?
না ।

এটি আমাদের সুন্দরবন :)

 


 

  

 

 

 

 

মাছটির নাম গ্লাস কেট ফিশ !
অনেকে বলে ভুত মাছ !
এই মাছের বৈশিষ্ট্য , তার গায়ে অন্য সব মাছের মতো সব কিছুই আছে কিন্তু খালি চোখেই দেখা যায় তার কাটা ! মৃত্যু হলে আস্তে আস্তে দুধ বরন হয়ে যায় তার রং ! গায়ের গরন খুব পাতলা ,
সুবহানাল্লাহ , আল্লাহ্‌ পাকের নিখুত এই সৃষ্টির প্রশংসা করার ভাষাও নেই !

 

 

তুসার স্রোত থেকে আসা স্বচ্ছ পানি ও সাগর এর পানি পাশাপাশি অবস্তান করছে। 
সাগর এর পানিতে লবন বেশি থাকে । যার জন্য এর ঘনত্ব বেশি থাকে, এবং পৃথক ঘনত্ব এর কারনে এরা এক সাথে মিলিত হয় না ।
 

 


 

 

 

রাস্তা টি দেখুন কতইনা সুন্দর।
এটি পৃথিবীর ১০ টি ভয়ঙ্কর রাস্তার মধ্যে ১টি।
কিন্তু এর স্থান ১০ম :-D
Stelvio Pass Road Trollstigen নামে এটি পরিচিত।
এটি ইটালি তে অবস্থিত।
 

 


 

 

 


 

 

 

 


 

 

রাত্র দু'টা হলে
দু'রাকাত নামায পড়ে
দু'হাত তুলে
দু'চোখের অশ্রু ঝরিয়ে
দু'য়া দরূদ করে
দু'জাহানের কামিয়াবী হাসীল করুন

 

 


 

 

Photo